1. bdweb24@gmail.com : admin :
  2. him@bdsoftinc.info : Staff Reporter : Staff Reporter
রবিবার, ২১ জুলাই ২০২৪, ০৪:৫১ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
কোটা সংস্কার নিয়ে প্রয়োজনে সংসদে আইন পাস: জনপ্রশাসনমন্ত্রী ২১, ২৩ ও ২৫ জুলাইয়ের সব বোর্ডের এইচএসসি পরীক্ষা স্থগিত কোটাবিরোধী আন্দোলন: সারাদেশে প্রাণ গেল ৮ জনের শিক্ষার্থীদের সঙ্গে আলোচনার মাধ্যমে সমাধান চায় সরকার: তথ্য প্রতিমন্ত্রী কোটা সংস্কারে নীতিগতভাবে একমত সরকার: আইনমন্ত্রী রক্ত মাড়িয়ে সংলাপ নয়: সমন্বয়ক হাসনাত আব্দুল্লাহ আন্দোলনকারীদের সঙ্গে আলোচনায় দুই মন্ত্রীকে দায়িত্ব দিলেন প্রধানমন্ত্রী উত্তরায় গুলিতে নর্দান বিশ্ববিদ্যালয়ের ২ শিক্ষার্থী নিহত রংপুরে ‘লজ্জায়’ আ.লীগ-ছাত্রলীগের দুই শতাধিক নেতাকর্মীর পদত্যাগ আবারও মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের ব্রিফিংয়ে কোটা আন্দোলন প্রসঙ্গ

শ্বশুরবাড়িতে গিয়ে ঘুমন্ত স্ত্রীকে পুড়িয়ে হত্যার চেষ্টা

রিপোর্টার
  • আপডেট : রবিবার, ৪ জুলাই, ২০২১
  • ৬৭৮ বার দেখা হয়েছে

বঙ্গনিউজবিডি ডেস্ক : মৌলভীবাজারের বড়লেখায় শ্বশুরবাড়িতে ঘুমন্ত স্ত্রী রহিমা বেগমের (২৪) গায়ে পেট্রল ঢেলে আগুন ধরিয়ে হত্যার চেষ্টা চালিয়েছে স্বামী শিপন আহমদ (৩২)। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার হরিপুর গ্রামে রফিক উদ্দিনের বাড়িতে রোববার ভোরে।

স্বামী ও তার পরিবারের লোকজনের নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে গৃহবধূ রহিমা আড়াই বছরের ছেলেকে নিয়ে বাবার বাড়িতে আশ্রয় নিয়েছিল। কিন্তু সেখানেও তার শেষ রক্ষা হলো না। স্বামীর দেয়া আগুনে শরীরের প্রায় ৬৫ শতাংশ ঝলসে গেছে।

আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়েছে।

এ ঘটনায় আহত গৃহবধূর বাবা রফিক উদ্দিন স্বামীসহ ৩ জনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করেছেন। এরপর পুলিশ অভিযান চালিয়ে দুপুর আড়াইটার দিকে পালিয়ে যাওয়ার সময় স্বামী শিপন আহমদকে ও নিজ বাড়ি থেকে তার মা (গৃহবধূর শাশুড়ি) আনারি বেগমকে গ্রেফতার করেছে। শিপন আহমদ উপজেলার জুতিরবন্দ গ্রামের মুকুল আহমদের ছেলে।

থানা পুলিশ ও ভুক্তভোগী পরিবার সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার হরিপুর গ্রামের রফিক উদ্দিনের মেয়ে রহিমা বেগমের সঙ্গে তিন বছর আগে জুতিরবন্দ গ্রামের মুকুল মিয়ার ছেলে শিপন আহমদের বিয়ে হয়। বিয়ের পর পারিবারিক বিভিন্ন বিষয় নিয়ে রহিমার সঙ্গে স্বামী ও তার পরিবারের লোকজনের ঝগড়াঝাটি হতো। এতে স্বামী ও তার স্বজনরা গৃহবধূ রহিমার ওপর শারীরিক নির্যাতন চালায়। বিষয়টি স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা কয়েকবার সমাধান করে দিলেও লাভ হয়নি, চলতে থাকে পারিবারিক কলহ।

এদিকে স্বামী ও তার স্বজনদের নির্যাতন সইতে না পেরে প্রায় এক বছর আগে আড়াই বছরের ছেলেকে নিয়ে স্বামীর বাড়ি থেকে বাবার বাড়িতে আশ্রয় নেয় গৃহবধূ রহিমা। সন্তানকে দেখতে প্রায়ই শ্বশুরবাড়িতে আসতেন রহিমার স্বামী শিপন আহমদ।

শনিবার শিপন শিশু ছেলেকে দেখতে শ্বশুরবাড়িতে গিয়ে রাত্রিযাপন করে। ভোর ৫টার দিকে হত্যার উদ্দেশ্যে সে ঘুমন্ত স্ত্রী রহিমা বেগমের গায়ে পেট্রল ঢেলে আগুন ধরিয়ে পালিয়ে যায়। রহিমার চিৎকারে স্বজনরা তাকে দ্রুত উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় হাসপাতালের চিকিৎসকরা তাকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করেন।

এদিকে ঘটনার খবর পেয়ে অভিযুক্ত শিপনকে গ্রেফতারে অভিযানে নামে পুলিশ। বেলা আড়াইটার দিকে উপজেলার পশ্চিম হাতলিয়া এলাকা থেকে পুলিশ শিপনকে গ্রেফতার করেছে। পরে তার মাকেও গ্রেফতার করা হয়েছে।

বড়লেখা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগে কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. মো ফয়জুল ইসলাম জানান, সকাল ৭টার দিকে অগ্নিদগ্ধ রহিমা বেগমকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তার শরীরের ৬৩ শতাংশ পুড়ে গেছে। অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে সিলেট ওসমানী হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।

বড়লেখা থানার ওসি মো. জাহাঙ্গীর হোসেন সরদার জানান, গৃহবধূকে পুড়িয়ে হত্যার ঘটনায় স্বামীসহ ৩ জনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা হয়েছে। পুলিশ তাৎক্ষণিক অভিযান চালিয়ে জুড়ীর দিকে পালানোর সময় স্বামী শিপন আহমদকে পশ্চিম হাতলিয়া নামক স্থান থেকে গ্রেফতার করেছে। পরে অপর আসামি গৃহবধূর শাশুড়ি আনারি বেগমকেও গ্রেফতার করা হয়।

Please Share This Post in Your Social Media

এই বিভাগের আরো সংবাদ

© ২০২৩ bongonewsbd24.com