1. bdweb24@gmail.com : admin :
  2. him@bdsoftinc.info : Staff Reporter : Staff Reporter
শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪, ০১:২০ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
চাঁদপুরে একের পর এক বেরিয়ে আসছে ভয়ঙ্কর রাসেল ভাইপার, আতঙ্ক আফগানিস্তানের বিপক্ষে লড়াকু পুঁজি ভারতের দেশে আবিষ্কৃত ২৯টি গ্যাস ক্ষেত্রের মধ্যে ২০টি উৎপাদনরত রাশিয়ার দুটি জ্বালানি ডিপোতে ড্রোন হামলায় আগুন বেনজীর ও আছাদুজ্জামানের সম্পদ নিয়ে যা বললেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী শ্রমিকদের মৃত্যু নিয়ে প্রবাসীকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী বললেন ‘হায়াত-মউত আল্লাহর হাতে’ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শনিবারের ছুটি নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত চান্দিনায় স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতার ওপর হা-ম-লার প্র-তিবাদে মানববন্ধন শুল্ক ও বাড়তি কর বিদেশি বিনিয়োগে বড় বাধা: পলক মিয়ানমারকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, আমরাও পাল্টা গুলি চালাবো: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

ঈদযাত্রায় গণপরিবহনে ভাড়া ডাকাতি ও যাত্রী হয়রানির অভিযোগ

রিপোর্টার
  • আপডেট : শনিবার, ৯ জুলাই, ২০২২
  • ১০৮ বার দেখা হয়েছে

বঙ্গনিউজবিডি ডেস্ক : ঈদযাত্রায় মোটরসাইকেল বন্ধের সুযোগ কাজে লাগিয়ে গণপরিবহন সংকটকে পুঁজি করে সড়ক, রেল, নৌপথে ভাড়া ডাকাতি ও ইচ্ছেমতো যাত্রী হয়রানি চলছে বলে অভিযোগ করেছে, বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতি।

জরুরি ভিত্তিতে এমন ভাড়া নৈরাজ্য এবং যাত্রী হয়রানি বন্ধের দাবি জানিয়েছে সংগঠনটি।

শুক্রবার (৮ জুলাই) সকালে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে সংগঠনের মহাসচিব মোজাম্মেল হক চৌধুরী এসব কথা বলেন।

যাত্রী কল্যাণ সমিতির বিবৃতিতে বলা হয়, বৃহস্পতিবার (৭ জুলাই) সন্ধ্যা থেকে রাজধানীর সিটি সার্ভিসের বাসের ভাড়া কোনো কোনো পথে ৫ থেকে ৬ গুণ পর্যন্ত বাড়তি আদায় করা হচ্ছে।

উত্তরা থেকে সায়েদাবাদে ৫০ টাকার বাসভাড়া ৩০০ টাকা নিতে দেখা গেছে। শ্যামলী থেকে গুলিস্থানে ৩০ টাকার বাস ভাড়া ২০০ টাকা আদায় করতে দেখা গেছে।

ধানমন্ডি থেকে সদরঘাট ২৫ টাকার বাসভাড়া ২০০ টাকা আদায় করতে দেখা গেছে। টার্মিনাল কেন্দ্রিক নয়-এমন পথে যাত্রী প্রতি ওঠানামা ভাড়া কোনো কোনো বাসে ৫০ টাকা, আবার কোনো কোনো বাসে ১০০ টাকা আদায়ের নৈরাজ্য এখনও চলছে।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, নগরীর প্রতিটি লেগুনা সার্ভিসের ভাড়া কোথাও দ্বিগুণ, আবার কোথাও তিনগুণ আদায় করা হচ্ছে। কেরানীগঞ্জের কদমতলী ও সদরঘাট থেকে গুলিস্থান পথে মাত্র ৩ কিলোমিটার দূরত্বে লেগুনা ভাড়া ১৫ টাকা আদায় করা হলেও কখনো ৩০ টাকা, কখনো ৫০ টাকা আদায় করা হচ্ছে।

একই চিত্র নগরীর সকল লেগুনা রুটে দেখা যাচ্ছে।

সংগঠনটি জানায়, রিকশা ভাড়া ৩ থেকে ৪ গুণ বাড়তি আদায় করা হচ্ছে। সিএনজিচালিত অটোরিকশা গুলশান, বনানী, বাড়িধারা থেকে স্বাভাবিক সময়ে ৬০০ থেকে ৭০০ টাকায় সদরঘাট লঞ্চ টার্মিনাল বা কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনে যাতায়াত করা গেলেও বৃহস্পতিবার থেকে এই পথে দুই হাজার থেকে তিন হাজার টাকা পর্যন্ত সিএনজি অটোকশার ভাড়া গুনতে হচ্ছে।

যাত্রী কল্যাণ সমিতি বলেছে, দূরপাল্লার যাত্রাপথে ঢাকা-রংপুর, ঢাকা-রাজশাহী, নওগাঁ, ঠাকুরগাঁও, দিনাজপুর উত্তরাঞ্চলের প্রতিটি রুটে বিদ্যমান ভাড়া থেকে গন্তব্যভেদে ৩০০ থেকে ১৫০০ টাকা পর্যন্ত বাড়তি ভাড়া নেওয়া হচ্ছে।

অনুরূপভাবে ঢাকা-কক্সবাজার, বান্দরবান, রাঙ্গামাটি, খাগড়াছড়ি প্রতিটি রুটে এহেন ভাড়া নৈরাজ্য চলছে। দেশের একজেলা থেকে অপর জেলায় চলাচলকারী গণপরিবহনগুলোতেও অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের এই চিত্র অব্যাহত আছে।

পদ্মা সেতু হয়ে যাতায়াতকারী প্রতিটি রুটে বিভিন্ন নন ব্র্যান্ডের বাসে দ্বিগুণ ভাড়া আদায়ের নৈরাজ্য চলছে।

এ ছাড়াও খ্যাতনামা ব্র্যান্ডের বাসগুলো বিদ্যমান ভাড়ায় যাত্রী বহন করলেও কোনো কোনো পথে যাত্রী সাধারণকে স্বল্প দূরত্বে যাতায়াতের ক্ষেত্রে বেশি দূরত্বের টিকিট কিনতে বাধ্য করছে।

এতে করে নিম্ন আয়ের মানুষ, শ্রমজীবী, কর্মজীবী, দিনমজুর এ ধরনের স্বল্প আয়ের মানুষজনকে পণ্যবাহী ট্রাক-পিকআপে স্বল্প ভাড়ায় যাতায়াতে বাধ্য হচ্ছে।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, পদ্মা সেতু চালু হওয়ার পর যাত্রী সংকটের কারণে ঢাকা-বরিশালের বিভিন্ন নৌপথের ভাড়া আর্কষণীয় হারে কমানো হলেও এখন এই পথেও ভাড়া নৈরাজ্য চরমে ঠেকেছে।

রেলে টিকিট কালোবাজারি, অনলাইনে টিকিট পেতে বিড়ম্বনাসহ নানা কারণে যাত্রী সাধারণের হাতে টিকিট পৌঁছাতে নির্ধারিত মূল্যের তিনগুণ পর্যন্ত বাড়তি ভাড়া গুনতে হচ্ছে।

দেশের অভ্যন্তরীণ রুটে আকাশ পথেও এহেন ভাড়া নৈরাজ্যের কারণে যাত্রী সাধারণ এখন দিশেহারা।

তাই জরুরি ভিত্তিতে এহেন ভাড়া নৈরাজ্য ও যাত্রী হয়রানি বন্ধে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণের দাবি জানিয়েছে সংগঠনটি।

Please Share This Post in Your Social Media

এই বিভাগের আরো সংবাদ

© ২০২৩ bongonewsbd24.com